দেশের পর্যটনকেন্দ্রগুলো আস্তে আস্তে খুলতে শুরু করেছে

0
20

কভিড-১৯-এর কারণে বন্ধ থাকা দেশের পর্যটনকেন্দ্রগুলো আস্তে আস্তে খুলতে শুরু করেছে। পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে পর্যটক ও পর্যটনশিল্পের সঙ্গে জড়িত সবাই যাতে স্বাস্থ্যবিধি ও অন্য নির্দেশনাবলি অক্ষরে অক্ষরে পালন করে, সেই ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। পর্যটক ও জনসাধারণ যাতে কোনো ধরনের স্বাস্থ্যগত হুমকিতে না পড়ে, এই বিষয়টি কঠোরভাবে মনিটর করতে হবে।

গতকাল বুধবার বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড আয়োজিত পিরোজপুর জেলার সঙ্গে এক অনলাইন কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এই কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, পর্যটনকেন্দ্রে সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। পর্যটন স্থানীয় কারুশিল্প এবং এর সঙ্গে জড়িত জনগণের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে। স্থানীয় কারুশিল্প ও বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত কৃষিপণ্যের প্রচার ও প্রসারের মাধ্যমেও পর্যটন গন্তব্যকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরা সম্ভব। পিরোজপুরের ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটি, নেছারাবাদের ক্রিকেট ব্যাট, স্বরূপকাঠির ভাসমান পেয়ারা বাজার, নেছারাবাদ ও নাজিরপুরের ভাসমান সবজিবাগান ও মাল্টা চাষের বিষয়গুলো যথাযথ প্রচারের মাধ্যমে পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে হবে। এই বিষয়গুলো উপজীব্য করে পিরোজপুরের পর্যটনের উন্নয়নে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডও পরিকল্পনা গ্রহণ করবে।

মাহবুব আলী বলেন, পর্যটনের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন সম্ভব। পর্যটন নারীকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করে তুলবে। পর্যটনের সঙ্গে জড়িত সব নারী উদ্যোক্তাকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সব ধরনের নীতিগত সহায়তা অব্যাহত রাখবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here