তিস্তার পানি আবারও বেড়ে প্রবল স্রোতে

0
21

তিস্তার পানি আবারও বেড়ে প্রবল স্রোতে শেখ হাসিনা গঙ্গাচড়া সেতু পেরিয়ে রংপুর-কাকিনা সড়কে ভাঙন দেখা দিয়েছে। সড়কের একটি সেতুর পাশে ১৫ মিটার জুড়ে ব্লক পিচিং ধসে পড়ায় হুমকিতে পড়েছে সড়কটি। দ্রুত এখানকার ভাঙন রোধ করা না গেলে সড়কটি বিলীন হওয়ার শঙ্কা করছে স্থানীয়রা। তারা জানান, এই সড়কটি ক্ষতিগ্রস্ত হলে বুড়িমারী স্থলবন্দরের সঙ্গে রংপুর শহর তথা দেশের যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যাবে।

লক্ষ্মীটারি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল হাদী বলেন, গত এক সপ্তাহে পশ্চিম ইচলী এলাকায় ২০০ পরিবারের বাড়িঘর ভেঙে গেছে। লোকজন এখন অনেক কষ্টে উঁচু স্থানে কিংবা রাস্তায় কোনরকমে দিন পার করছে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) গঙ্গাচড়া উপজেলা প্রকৌশলী এ জেড এম আহসান উল্লাহ বলেন, ‘রংপুর-কাকিনা সড়কের ভাঙন রোধে আপাতত বালির বস্তা ডাম্পিং করা হচ্ছে।’

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী হাসান বলেন, যেহেতু তিস্তার গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে, এ কারণে  সেখানে সমীক্ষা করার পর প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঈদের আগে শংকরদহ বাঁধটি ভেঙে যাওয়ার কারণে পাঁচ গ্রামের প্রায় পাঁচ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। সেইসঙ্গে চর ইচলী গ্রামের ২০০ পরিবারের বাড়িঘর বিলীন হয়ে যায়। এখন একটু পানি কমলেও ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। লোকজন বাড়িঘর সরাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। চরের মানুষজনের চলাচল সমস্যাসহ বাড়িভাঙা পরিবারগুলো আশ্রয়হীন অবস্থায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here