Home Lifestyle চা’য়ের সঙ্গে সিনেমা ফ্রি ভিড় বাড়ছে মিনি হ’লে

চা’য়ের সঙ্গে সিনেমা ফ্রি ভিড় বাড়ছে মিনি হ’লে

0
161

না’য়ক মান্নার অ্যা’কশন, থেকে থেকে উত্তে’জনায় লা’ফিয়ে উঠ’ছিলেন মোস’লেম উদ্দিন (৫৫)। প্রিয় নায়ক মার খেয়ে’ যখন রক্তাক্ত। তখন মু’ষড়ে গেলেন মধ্যব’য়সী মা’নুষটি। সিনেমা’গুলোতে অন্যায়ে’র প্রতিবা’দ করে বলেই মান্না তার প্রি’য় নায়ক। এরই ফাঁ’কে কথা হলো মোস’লেম উদ্দিনের’ সঙ্গে। বছর বিশেক আগে’ ১০ কি’লোমিটার পথ ‘হেঁটে গাইবা’ন্ধা শহরের ‘মায়া হলে মান্না’র সিনে’মা দেখেছেন। এরপর শখ থাকলেও পরি’বারের দৈন্যতা’য় হলের বারান্দা’য় পা রাখ’তে দেয়নি তাকে। স’ময় পেলেই বাড়ির পা’শের চায়ের দোকানের আড্ডা’য় মেতে ওঠেন।

চার’দিকে কুয়া’শার আ’বরণ। ঘুটঘু’টে অন্ধ’কারে ঢাকা নি’ষুতি গ্রাম গাইবান্ধা’ সদরের দিঘীরপাড়। পুকুরের ওপরে টিনের ছাউনির’ তলে বেলাল মিয়ার চায়ের ‘দোকান।’ রঞ্জু মিয়া, আ’মজাদ হো’সেন, রঞ্জু ‘মিয়াসহ শি’শু-কিশোর আর উঠতি বয়সে’র কয়েকজন তরুণও আছে মোসলেম উদ্দিনের সঙ্গে সি’নেমার দর্শ’ক হিসেবে।’

আম’জাদ হোসেনও সিনেমা’ নিয়ে স্মৃতিচারণ করলেন। বছর ত্রিশেক ‘আগে গাইবান্ধা শহ’রের মায়া, চৌধুরী ও নূপুর হ’লে সি’নেমা দেখেছেন। রাতের’ পর রাত দেরি’তে’ বাড়ি ফে’রার যন্ত্রণাও পো’হাতে হয়েছে তাকে’। এখন আর নূপুর হল নে’ই। চৌধুরী হলও বন্ধ। মায়া সিনেমা হলের নাম পরিবর্তন হয়ে এখন তাজ সি’নেমা হল। তাজ হলে’র অ’বস্থাও আর আগের ম’তো নেই। সারা দিন কাজক’র্ম সেরে চায়ের নে’শায় সন্ধ্যায় চায়ের নেশা ‘পেয়ে বসে। চলে’ যান টং দো’কানে। চা’য়ের কাপে ঠোঁট’ দিয়ে বিনা পয়সা’য় সিনেমা দে’খেন।

দর্শক ‘রঞ্জু মিয়া বলেই উঠলেন, টাকা দিয়ে আর সিনেমা দেখা’ দরকার হয় না। চায়ের সঙ্গে সিনেমা’ ফ্রি। সন্ধ্যা’র পর মধ্যরাত প’র্যন্ত চায়ের আ’ড্ডায় সিনে’মার সঙ্গে সঙ্গে চ’লে দেশ বিদেশের রাজনী’তি, কূটনীতি আর নিজে’দের সুখ-দুখের গল্প।

দোকা’নদার বেলাল মিয়া কদিন আ’গেও রিকশা চালাতেন। ‘রিকশা বাদ দিয়ে গ্রামের মো’ড়ে দোকান খুলে বসেছে। টিভি না’ থাকলে কেউ আসে না’। সাড়ে ১৩ হাজার ‘টাকায়’ ২৪ ইঞ্চি র’ঙিন টিভি কিনে’ছে। আগে সিডি লা’গলেও এখন আর ‘দরকার হয় না। মাত্র ২০ টাকায় ‘৩২ জিবির মেমোরিতে ‘পনেরোটা সিনেমা ধরে’/

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here